তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির কিছু মৌলিক বিষয়

আজ আমি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির কিছু মৌলিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করব এবং আপনাদেরকে সামগ্রীক ধারণা দেবার চেষ্টা করব। চলুন শুরু করা যাক।

উপাত্ত

তথ্যের অন্তর্ভুক্ত ক্ষুদ্রতম অংশ সমূহ হচ্ছে উপাত্ত।  উপাত্ত এক বা একাধিক বর্ণ অথবা চিহ্ন কিংবা একটি পূর্ণ শব্দ বিশিষ্টও হতে পারে। উপাত্তকে ইংরেজি ডাটা বলে মূলত এটি একটি ল্যাটিন শব্দের বহুবচন। ল্যাটিত শব্দ Datum এর বহুবহন হচ্ছে ডাটা বা উপাত্ত। উপাত্ত বা ডাটা হচ্ছে তথ্য বা ইনফরম্যাশন এর  উপাদান। তথ্যের মৌলিক বা ক্ষুদ্রতম একক হচ্ছে উপাত্ত বা ডাটা। পরিশেষে আমরা ববলতে পারি উপাত্ত বা ডাটা হচ্ছে এক বা একাদিক বর্ণ, চিহ্ন, শব্দ বা সংখ্যা। এবার চলুন দেখা যাক উপত্তের কিছু উদাহরণ ও তাঁর বর্ণানা। উদাহরণের মাধ্যমে বিষয়টি সুস্পষ্ট করার  চেষ্টা করছি।

উদাহরণঃ ৯ এক ০

এখানে ৯ একটি অংশ এক একটি শব্দ ০ একটি বর্ণ সব বিষয় গুলি উপাত্তের অন্তরগত আর উপাত্তের সমষ্টিতে তথ্য গঠিত।

উপাত্তের শ্রেণি বিভাগ

(১) নিউমেরিক

(২) অ-নিউমেরিক

(৩) বুলিয়ান বা লজিক্যাল

নিউমেরিকঃ যে সমস্ত উপাত্ত কোন পরিমান বা সংখ্যা প্রকাশ করে তাদেরকে নিউমেরিক উপাত্ত বা ডাটা  বলে।

যেমনঃ ২,১,১০০,৫০০,৪৫.৭ ইত্যাদি

নিউমেরিক উপাত্ত প্রকারঃ

(১) ইন্টিজার বা পূর্ণ সংখ্যা

(২) ফ্লোটিং বা ভগ্নাংশ

 অ-নিউমেরিকঃ যে সমস্ত উপাত্ত কোন পরিমান বা সংখ্যা প্রকাশ করে না তাদেরকে অ-নিউমেরিক  উপাত্ত বলে

যেমনঃ A,B,M,D কোন ছবি, শব্দ বা ভিডিও ইত্যাদি।

 বুলিয়ান বা লজিক্যাল ডেটাঃ যেসমস্ত ডেটার কেবলমাত্র দুইটি অবস্থা থাকতে পারে যেমন সত্য অথবা মিথ্যা, হ্যাঁ বা না, ০  কিংবা ১ ইত্যাদি সে সকল ডেটাকে বুলিয়ান বা লজিক্যাল  ডেটা বলা হয়।

Posted in Internet and tagged , .

Leave a Reply