আপনার ইউটিউব চ্যানেলে অতি দ্রুত কিভাবে করবেন ১০,০০০ভিউ

yt update rules

আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করবো অতি দ্রুত কিভাবে করবেন দশ হাজার (১০,০০০) ভিউ। ইউটিউবের নতুন পলিসি দেখে অনেকেই অবাক হয়েছেন হয়ত, অবাক হওয়ার কিছু নাই। আপনি কি জানেন? এ পদ্ধতির জন্য যারা রিয়েল ইউটিউবার তারাই টিকে থাকবে, আর বাকিরা ঝরে যাবে। ধন্যবাদ জানাই ইউটিউবকে, কারন এখন আর যে কোন চ্যানেল হারানোর ভয় নেই।
এবার আসুন জানি ইউটিউবের নতুন পলিসি সম্পর্কে

ইউটিউবের নতুন পলিসি:
ইউটিউব তাদের পার্টনার প্রোগ্রামে নতুন পরিবর্তন এনেছে, গত ৬ এপ্রিল ২০১৭ ইং তারিখে ইঊটিউব তার ব্লগে পাবলিশ করেছে, যদি কোন ইউটিউব চ্যানেলে লাইফ টাইম ১০,০০০ ভিউ না থাকে তাহলে সেই চ্যানেলে অ্যাড শো করবেনা। আবার ১০,০০০ ভিউ হলেই চ্যানেলে অ্যাড শো করবে, তাও না। কথা হলো, ১০,০০০ ভিউ হলে আপনি মনিটাইজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারবেন, ইউটিউব আপনার চ্যানেল কে পর্যবেক্ষণ করবে এবং সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আপনাকে তাদের YPP (YouTube Partner Program) এর আওতাতে নিয়ে নিবে, তখনই আপনার ভিডিও তে অ্যাড শো করবে আর শুরু হবে আপনার ইনকাম। এ পদ্ধতি কার্যকর হয়েছে গত ৭ এপ্রিল ২০১৭ ইং থেকে আর এটাই হলো ইউটিউবের ২০০৭ এর পর এই প্রথম বড় পরিবর্তন।

কি নিয়ে কাজ করবেন:
ইউটিউবে আপনি অনেক টপিক বা নিস নিয়ে কাজ করতে পারেন, তবে সব টপিক বা নিসে সমান ভিউয়ার হয় না। কিছু কিছু টপিক বা নিস আছে যেগুলোতে ভিউয়ার খুবই কম আবার অনেক টপিক বা নিস আছে যেগুলোতে প্রচুর ভিউয়ার হয়। আমি ২ টি টপিক বা নিসের নাম বলবো যেগুলো নিয়ে কাজ করলে ভিউয়ার হবেই হবে।

১. টেকনোলজি: মানব জন্মের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত মানুষের টেকনোলজি সম্পর্কে জানার আগ্রহ কমতি নেই। তাই আপনি টেকনোলজি সম্পর্কে কোনো ভিডিও তৈরি করলে তা মানুষ অবশ্যই দেখবে। তবে নতুন বা আপকামিং কোন নিউজ নিয়ে করবেন।

২. সাম্প্রতিক নিউজ: সাম্প্রতিক নিউজ বা ঘটনা সম্পর্কে সবাই জানতে চায়। সাম্প্রতিক নিউজ নিয়ে কোনো ভিডিও তৈরি করলে তা মানুষ অবশ্যই দেখবে।

এবার কথা হচ্ছে ভিউয়ার আসবে কিভাবে
ভিউয়ার জন্য যারা এস.ই,ও পারেন তারা এস.ই,ও করবেন আর যারা এস.ই,ও পারেন না, তাদের তো সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করা ছাড়া আর অন্য কোন উপায় নাই। আপনি পারলে সকল সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করবেন।
তবে আমি শুধু ফেসবুকে কিভাবে শেয়ার করে ভিউয়ার বাড়াবেন তা জানালাম-
প্রথমে ফেসবুকে টেকনোলজি ও নিউজ রিলেটেড ভালো ১০ টা গ্রুপ পেজ এবং ১০ টা লাইক পেজ জয়েন করবেন যাদের মেম্বার থাকবে ১,০০,০০০ এর উপর। তাদের পোস্টে লাইক ও টিউমেন্ট দিবেন তা না হলে আপনি জয়েন করার পর পর আপনাকে কোন লিংক শেয়ার করতে দিবে না।
তারপর আপনি প্রতিদিন টেকনোলজি সম্পর্কে অথবা সাম্প্রতিক নিউজ নিয়ে ২ টা ভিডিও তৈরি করুন আর ফেসবুকে ১০ টা গ্রুপ পেজে এবং ১০ টা লাইক পেজে শেয়ার করুন।

এবার একটু হিসেব দেখি কি হয়-
আপনি ১০ টা গ্রুপ পেজে এবং ১০ টা লাইক পেজে মোট ২০ পেজে জয়েন করলেন, কিন্তু এখান থেকে ১০ পেজে পোস্ট করতে দিল না। আপনি পোস্ট দিলেন ১০ টা পেজে…
১০ পেজ × ১,০০,০০০ মেম্বার = ১০,০০,০০০ মোট মেম্বার। মোট ১০,০০,০০০ মেম্বারের ০.১% মেম্বারও যদি আপনার ভিডিও দেখে তাহলে আপনার প্রতিদিন ভিউয়ার হবে ১০০০ আর ২ টা ভিডিও হলে ২০০০, তাহলে ৫ দিনের মধ্যে ১০০০০ ভিউয়ার হয়ে যাবে। যদি তারও অর্ধেক হয় তাহলে ১০ দিন লাগবে।
কিন্তু, আপনার টপিক এবং ভিডিও যদি ভালো হয় একদিনেও ১০,০০০ চেয়ে অনেক বেশী ভিউয়ার হতে পারে তবে এটা নির্ভর করবে আপনার উপর।
তারপরও কারো সহযোগিতা প্রয়োজন হলে, আমি তো আছি, প্রয়োজন হলে জানাবেন, অবশ্যই সহযোগিতা করবো। তবে আমি নিজে যেভাবে কাজ করছি তা সবার সাথে শেয়ার করলাম, ভালো লাগলে আমার গাইডলাইন ফলো করবেন। আর যদি ভূল হয় ক্ষমা-সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবন।

Posted in Youtube and tagged .

Leave a Reply